বাবার স্বপ্নপূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে


জাতীয় কণ্ঠ ডেস্ক প্রকাশের সময় : জুলাই ১৯, ২০২৩, ৯:১২ অপরাহ্ন /
বাবার স্বপ্নপূরণে হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে
নিউজটি শেয়ার করুন

বাবার স্বপ্ন পূরণ করতে সোয়া তিন লাখ টাকায় ভাড়া করে মাত্র ১৫ কিলোমিটার দূরের পথ হেলিকপ্টারে চড়ে বিয়ে করতে গেলেন রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলার সৌদি প্রবাসী মো. ইউসুফ মোল্লা (২৬)।

বুধবার (১৯ জুলাই) দুপুর দেড়টায় বালিয়াকান্দি উপজেলার রামদিয়া বিএমবিসি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ থেকে হেলিকপ্টারে চড়ে মাত্র পাঁচ মিনিটে কনের বাড়ি একই উপজেলার রাজধারপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে গিয়ে পৌঁছায় হেলিকপ্টার। এ সময় বরের সঙ্গে ছিলেন তার দুলাভাই জাফর শেখ ও ভাগনে-ভাগনি।

মো. ইউসুফ মোল্লা বালিয়াকান্দির ইসলামপুর ইউনিয়নের কাউন্নাইর গ্রামের মো. ছমির মোল্লার ছেলে। তার বাবা ছমির মোল্লা একজন সবজি বিক্রেতা।

কনের নাম সামিয়া আক্তার (১৮)। তিনি বালিয়াকান্দি উপজেলার ইসলামপুর ইউনিয়নের রাজধরপুর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের মেয়ে।

হেলিকপ্টার থেকে নেমে বাদ্যবাজনা বাজিয়ে ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে কনের বাড়িতে যান বর। বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা শেষে নববধূকে নিয়ে আবার হেলিকপ্টারে চড়ে নিজ গ্রামে ফিরে আসেন। নিজ বাড়ি থেকে হেলিকপ্টার পর্যন্ত ইউসুফ মোল্লা আসেন ঘোড়ার গাড়িতে চড়ে। তার বিয়ের এমন আয়োজন দেখে অবাক গ্রামবাসী।

ইউসুফ মোল্লার বাবা ছমির মোল্লা জানান, অনেক আগে থেকেই তার শখ ছিল ছেলের বিয়েটি তিনি স্মরণীয় করে রাখবেন। রাজকীয়ভাবে ছেলের বউকে তার বাড়িতে আনবেন। সেই শখ পূরণে তিনি ব্যতিক্রমী এই আয়োজন করেন। তিনি মনে করেন এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে তার শখ পূরণ হয়েছে। এই বিয়েতে বরযাত্রী গিয়েছেন ৭০ জন। এদেরকে মাইক্রোবাসে কনের বাড়িতে পাঠানো হয়।

বর ইউসুফ মোল্লা বলেন, আমি দীর্ঘদিন সৌদি আরবে থেকেছি। বাবা-মায়ের শখ ছিল হেলিকপ্টারে বিয়ে করতে যাব। বাবা-মায়ের শখ পূরণ করতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। সবাই আমাদের জন্য দোয়া করবেন।

স্থানীয়রা জানান, এই অঞ্চলে এ ধরনের বিয়ে এটাই প্রথম। এর আগে কোনোদিন এরকম রাজকীয় বিয়ে হয়নি। বরের বাড়ি থেকে কনের বাড়ির দূরত্ব মাত্র ১৫ কিলোমিটার। এতটুকু রাস্তা যেতে সর্বোচ্চ ৩০ মিনিট সময় লাগার কথা। এত অল্প দূরত্বের পথে এই আয়োজন সত্যি ব্যতিক্রম।