পাকিস্তানকে হারাল যুক্তরাষ্ট্র


Emu Akter প্রকাশের সময় : জুন ৭, ২০২৪, ৫:১৭ পূর্বাহ্ন /
পাকিস্তানকে হারাল যুক্তরাষ্ট্র
নিউজটি শেয়ার করুন

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার ওভারে পাকিস্তানকে হারাল যুক্তরাষ্ট্র। প্রথমে ব্যাট করে পাকিস্তান করেছিল ৭ উইকেটে ১৫৯ রান। যুক্তরাষ্ট্র ৩ উইকেট হারিয়ে থামে ১৫৯ রানেই। ফলে সুপার ওভারে গড়িয়েছে ম্যাচটি। পরে সুপার ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ১৮ রান তোলে। জবাবে পাকিস্তান ১ উইকেট হারিয়ে তোলে ১৩ রান।

বৃহস্পতিবার ডালাসের গ্র্যান্ড প্রেইরি স্টেডিয়ামে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি পাকিস্তানের। শুরু থেকেই তাদের চাপে রাখেন যুক্তরাষ্ট্রের বোলাররা। বলার মতো রান করতে পারেন কেবল পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম ও মিডল অর্ডার ব্যাটার শাদাব খান।

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই ধাক্কা খায় পাকিস্তান। ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ান ফেরেন ব্যক্তিগত ৯ রানে। পরের ওভারে তিনে নামা উসমান খান ফেরেন ৩ রানে। এছাড়া পঞ্চম ওভারে নামা ফখর জামান ১১ রানে সাজঘরে ফেরেন।

২৬ রানে ৩ উইকেট হারানোর পর শাদাব ও বাবর মিলে ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই শুরু করেন। একপ্রান্তে বাবর থাকেন মাটি কামড়ে। অন্যপ্রান্তে কিছুটা হাত খুলে খেলেন শাদাব। তারা দুজন মিলে যোগ করেন ৭২ রান।

শাদাব ২৫ বলে ৪০ রান করে ফেরেন। এরপর ক্রিজে এসে প্রথম বলেই আউট হন আজম খান। একের পর এক উইকেট পতনের চাপে আর হাত খুলতে পারেননি বাবর। দলকে ১২৬ রানে রেখে জসদীপ সিংয়ের বলে এলডব্লিউ হয়েছেন তিনি। ৪৩ বলে ৪৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

শেষদিকে ইফতিখার আহমেদের ১৪ বলে ১৮ রান ও শাহিন শাহ আফ্রিদির ১৬ বলে অপরাজিত ২৩ রানের সুবাদে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৫৯ রান তোলে পাকিস্তান।

জবাবে খেলতে নেমে দারুন শুরু করে যুক্তরাষ্ট্র। শেষদিকে ৪২ বলে যুক্তরাষ্ট্রের দরকার ছিল ৫৬ রান, হাতে তখনও ৯ উইকেট। ম্যাচ তখনও যুক্তরাষ্ট্রের নিয়ন্ত্রণেই ছিল। তবে শেষ ১২ বলে যুক্তরাষ্ট্রের প্রয়োজন ছিল ২১ রান। তখন ১৯তম ওভারে আক্রমণে এসে মোহাম্মদ আমির ৬ রান দিয়ে ‍যুক্তরাষ্ট্রের জয়ের পথটা কঠিন করে ফেলে।

তবে ২০তম ওভারে বল করতে এসে খেই হারিয়ে ফেলেন হারিস রউফ। শেষ ওভারে প্রথম তিন বলে ৩ রান দেওয়া রউফকে পরে চার-ছক্কা হাকিয়ে স্কোরে সমতা টেনে ফেলে যুক্তরাষ্ট্র।

পরে সুপার ওভারে অভিজ্ঞ পেসার মোহাম্মদ আমিরের হাতে বল তুলে দেন পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। তবে সিদ্ধান্তটি বুমেরাং হয় পাকিস্তানের জন্য। প্রথম বলে বাউন্ডারি হজম করা আমির ওই ওভারে দেন ১৮ রান। এরপর জবাব দিতে নেমে তারা ব্যাটিংয়ে পাঠায় ইফতিখার আহমেদ ও ফখর জামানকে। তবে সুপার ওভারে পাকিস্তান ১ উইকেট হারিয়ে তোলে মাত্র ১৩ রান।